শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪, ৭ বৈশাখ, ১৪৩১, ১০ শাওয়াল, ১৪৪৫

শরীয়তপুরে ‘১৪৪ ধারা ভেঙে মাছ লুট, বোমা বিস্ফোরণ-ভাঙচুর’

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় ১৪৪ ধারা ভেঙে পুকুরের মাছ লুটের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে।

এর প্রতিবাদ করায় বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে বাড়িঘর ভাঙচুর ও সোনার গহনাসহ প্রায় ২ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেওয়ার অভিযোগও ওঠে।

এতে একই পরিবারের অন্তত পাঁচজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার নসাশন ইউনিয়নের নলিকান্দি গ্রামে এসব ঘটনা ঘটে বলে নড়িয়া থানার এসআই জালাল বলেন।

ওই গ্রামের ওসমান হাওলাদারের ছেলে আবুল কাসেম হওলাদার (৭০)।

তিনি বলেন, “গ্রামে আমাদের পৈত্রিক একটি পুকুর আছে। সেই পুকুরে জোর করে সেচ মেশিন বসায় স্থানীয় প্রভাবশালীরা। এতে আমি বাধা দিই। বাধা অমান্য করলে প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে আদালতে গিয়ে মামলা করি।

“আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে আদালত পুকুরে ১৪৪ ধারা জারি করেন।”

আবুল কাসেমের অভিযোগ, একই এলাকার মুনসুর মাদবরসহ ১০/১২ জন আদালতের আদেশ অমান্য করে তার পুকুরের মাছ ধরে নিয়ে যান।

“এ ছাড়া আদালতে যাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে গত মঙ্গলবার রাতে আমার বাড়িতে বোমা ফাটিয়ে ও ভাঙচুর করে সোনার গহনাসহ প্রায় ২ লাখ টাকা মালামাল নিয়ে যায় “

এ সময় তিনি, তার স্ত্রী কমলা বেগম (৬০), ছেলের বউ সুইটি বেগম (৩০), আবিদা বেগম (২৭)সহ পাঁচজন মারাত্মক আহত হন বলে দাবি আবুল কাসেমের। পরে তারা প্রাথমিক চিকিৎসা নেন।

তবে এসব ঘটনার সঙ্গে জড়িত নন জানিয়ে মুনসুর মাদবর বলেন, “আমি নই, অন্য ছেলেরা ঘটনা ঘটাতে পারে।”

এসআই জালাল বলেন, “হামলার পর আমি ঘটনাস্থালে গিয়েছিলাম। এ ঘটনায় এখনও কোনো মামলা হয়নি।”