বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ, ১৪৩১, ১১ মহর্‌রম, ১৪৪৬

জাজিরায় সংঘর্ষে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িতে গেলেন বি এম মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া

গত সপ্তাহে নিজ জন্মস্থান জাজিরার বিলাসপুরের দু’টি পক্ষের মধ্যে সংগঠিত হওয়া ভয়াবহ সংঘর্ষে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর সাথে সাক্ষাত করেন শরীয়তপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য এবং বাংলাদেশ আওয়ামিলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির টানা পঞ্চমবারের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক ভূইয়া। (৪-মার্চ) বিকাল থেকে স্থানীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত বিলাসপুরের বিভিন্ন প্রান্তে গিয়ে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর সাথে সাক্ষাৎ করেন।
প্রথমে স্টাপল্টন দিয়ে চেরাগ আলী বেপারি কান্দি এবং মহরখার কান্দি ও জানখার কান্দি হয়ে মুলাই বেপারী কান্দি, মেহের আলী মাদবর কান্দি এবং সারেং কান্দিসহ আশেপাশের সকল এলাকায়ই সংঘর্ষে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ি-বাড়ি গিয়ে অসহায় মানুষদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের খোঁজখবর নেন। সবশেষে সন্ধায় বুধাইরহাট হাজী শরীয়তুল্লাহ হাফেজিয়া একাডেমির বার্ষিক ইসলামি সম্মেলনে আসেন তিনি। বিভিন্ন গ্রামে বিচ্ছিন্ন প্রায় ৭ থেকে ৮ কিলোমিটার সমপরিমান রাস্তা পায়ে হেটে যেতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার সাথে থাকা সঙ্গীরা।
এসময় চেয়ারম্যান আ: কুদ্দুস বেপারী এবং পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আ: জলিল মাদবরের বাড়িতে বিলাসপুরসহ জাজিরা-শরীয়তপুরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা উপস্থিত কয়েকশত মানুষের সামনে বি এম মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া বিলাসপুরের মারামারি বা সংঘর্ষ  বন্ধ করার জন্য কাজ করবেন বলে জানান।  পাশাপাশি এখানকার ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদেরও পাশে থাকবেন বলে জানান তিনি। সেই সাথে আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামিলীগ থেকে মনোনয়ন পেলে আগামিতে জাজিরাকে উন্নত একটি মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তোলার জন্য কাজ করবেন বলে জানান।
তাছাড়া তিনি খুব শিঘ্রই বিলাসপুরের নেতৃত্বস্থানীয় সবাইকে নিয়ে একসাথে বসে বিলাসপুরের শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে আগামিতে যাতে আর এই ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তার জন্য সবার সাথে আলোচনার মাধ্যমে প্রশাসনের সহযোগিতায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান। তাছাড়া মুলাই বেপারী কান্দি চেয়ারম্যান আ: কুদ্দুস বেপারীর বাড়ির কাছে বসত করা অসহায় জুলেখা বিবির ছোট্ট একটি থাকার ঘর সংঘর্ষের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে অভিযোগ জানালে তাৎক্ষণিকভাবে  বি এম মোজাম্মেল হক ভূঁইয়া অসহায় জুলেখা বিবিকে নগদ ১০ হাজার এবং তার সফরসঙ্গী সৈয়দ এম তাজন ইসলাম নগদ ২ হাজার টাকা অর্থ সহায়তা প্রদান করেন।