বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১, ২০ জিলকদ, ১৪৪৫

পদ্মানদীতে ৭জন চাঁদাবাজকে আটক করেছে নৌ পুলিশ

শরীয়তপুরের জাজিরায় পদ্মানদীতে চাঁদাবাজি করার সময় হাতেনাতে চাঁদাবাজ চক্রের সাত সদস্যকে আটক করেছে মাঝীরঘাট নৌ-পুলিশ। বৃহস্পতিবার (৯-মার্চ) সকালে জাজিরার পালেরচর ও কুন্ডেরচর এলাকায় পদ্মানদী থেকে তাদের আটক করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মাঝীরঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মো: জহিরুল হক।
আটককৃতরা হলেন, পাথালিয়া কান্দির মোক্তার মাদবরের ছেলে আল আমিন মাদবর(২২), বাবুর চর আব্বাস বেপারি কান্দির আবু মাদবরের ছেলে রাজিব মাদবর(২২), জব্বার আলী আকন কান্দির মোশারফ আকনের ছেলে শান্ত আকন(২১) কালিকা প্রসাদের আনিস শেখের ছেলে নসিন শেখ(১৯), বাবুরচর সরল খার কান্দির মো: কাজল ওরফে কালু খানের ছেলে মো: মামুন খান(২৩) এবং একই এলাকার আমিন হোসেন আকনের ছেলে স্বপন আকন(২৬) ও ইব্রাহিম মাদবরের ছেলে ইমরান হোসেন মাদবর(২০)।
এ সময় তাদের কাছ থেকে ২টি ট্রলার এবং চাঁদাবাজি করা নগদ ৬ হাজার টাকা ও শপিং ব্যাগ উদ্ধার করে নৌ-পুলিশ। এই ঘটনায় জাজিরা থানায় দু’টি চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করা হয়েছে।
নৌ-পুলিশ কর্তৃক জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  পদ্মা নদীর বাবুরচর এলাকায় ট্রলারযোগে অবস্থান করে কিছু চাঁদাবাজ বিভিন্ন পণ্যবাহী ও বালুবাহী বাল্কহেড-জাহাজ থেকে ভয়ভীতি দেখিয়ে জোরপূর্বক চাঁদা আদায় করছে। খবর পেয়ে সাথে-সাথে মাঝীরঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ(আইসি) মো: জহিরুল হকের নেতৃত্বে ফাঁড়ির এএসআই মোঃ শহিদুল ইসলামসহ একটি টিম অভিযান পরিচালনা করে।
অভিযান পরিচালনার সময় তারা দেখতে পান, চাঁদাবাজরা বিভিন্ন পণ্যবাহী ও বালুবাহী বাল্কহেড থেকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে জোরপূর্বক চাঁদা আদায় করে চলেছে। এসময় পুলিশ চাঁদাবাজদের চারপাশ থেকে ঘিরে ফেলে হাতেনাতে আটক করে। পরে তাদের বিরুদ্ধে জাজিরা থানায় ২টি চাঁদাবাজির মামলা দিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়।
মাঝিরঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ(আইসি) পুলিশ উপ-পরিদর্শক মো: জহিরুল হক বলেন, প্রাথমিকভাবে আটককৃতরা পণ্যবাহী ও বালুবাহী বাল্কহেড থেকে দীর্ঘদিন যাবৎ চাঁদাবাজি করা এবং চাঁদা না দিলে নৌযানের চালকদেরকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে মারপিট করার কথা স্বীকার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে জাজিরা থানায় মামলা দায়ের করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।