বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১, ২০ জিলকদ, ১৪৪৫

ঢালাইয়ের মধ্য দিয়ে শেষ হল পদ্মা সেতুতে রেললাইন নির্মাণ মাওয়া থেকে ভাঙা পর্যন্ত পরীক্ষামূলক রেল চলবে আগামী ৪ এপ্রিল।

পদ্মা সেতুতে সড়ক পথের পর এবার রেললাইন নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হল। সেতুর পাথরবিহীন রেললাইনের বাকি সাত মিটারের ঢালাই সম্পন্ন হয় বুধবার বিকাল ৬টায়।

এবার মাওয়া থেকে ভাঙা পর্যন্ত পদ্মা সেতু অতিক্রম করে ৪২ কিলোমিটার পরীক্ষামূলক রেল চলবে আগামী ৪ এপ্রিল।

সেতু কর্তৃপক্ষ জানায়, সেতুর ২৫ নম্বর খুঁটির কাছে ৫ নম্বর মুভমেন্ট জয়েন্টের জন্য চীন থেকে নিয়ে আসা সবশেষ স্লিপারটি স্থাপনের পর শুরু হয় ঢালাইয়ের প্রস্তুতি। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিকেল সোয়া ৫টায় শুরু হয় ঢালাই। ট্র্যাকারে করে মাওয়া থেকে কংক্রিট মিকচার বিশেষভাবে তৈরি করে নিয়ে আসা হয়। এরপর ক্রেনে করে ঢেলে দেওয়া হয়।

ভাইব্রেশন মেশিন ব্যবহার করে মিকচার সবখানে সঠিকভাবে পৌঁছানোর পর লেভেল ঠিক করা হয়। ৪৫ মিনিটেই ১২টি স্লিপার ঢালাই করে যুক্ত করা হয় দুইভাগে। এই মাহেন্দ্রক্ষণে উচ্ছ্বসিত ছিলেন সবাই।

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাঈদ আহমেদ বলেন, “এটি বাঙালির আরেক স্বপ্নজয়। প্রধানমন্ত্রীর প্রজ্ঞাবান সিদ্ধান্তে নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত পদ্মা সেতু এখন বহুমুখী। কাজের গুণগতমানকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েই রেললাইন স্থাপন সম্পন্ন হলো। এখন পরবর্তী ধাপের যাবতীয় ফিনিশিং কাজও দ্রুত সময়ে মধ্যেই শেষ হবে।”

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. আফজাল হোসেন বলেন, “মাওয়া থেকে ভাঙা পর্যন্ত পদ্মা সেতু অতিক্রম করে ৪২ কিলোমিটার পরীক্ষামূলক রেল চলবে ৪ এপ্রিল। আর চলতি বছরের শেষের দিকে ঢাকা থেকে ভাঙা পর্যন্ত রেল চলাচলের আশা করছি।”

পুরো সেতুতে ১১ হাজার ২২টি স্লিপার বসেছে। এর মধ্যে চীন থেকে আনা হয় ২৭৪টি; বাকিগুলো বিশ্বমানের করে নির্মাণ করা হয় দেশে।