মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২৪, ১০ বৈশাখ, ১৪৩১, ১৩ শাওয়াল, ১৪৪৫

সিলেটে খুনের নাটক সাজিয়েও রক্ষা হলো না তাইজুলের

 

সিলেটের বিয়ানীবাজারে একটি বাড়ির কেয়ারটেকার তার বিছানা ও থাকার ঘরে রক্তসদৃশ তরল পদার্থ ছিটিয়ে উধাও হয়ে যান। পরে পুলিশ ৪০ ঘণ্টার মাথায় তাকে জীবিত অবস্থায় আটক করে। আটক করার পর নিশ্চিত হওয়া গেছে, মৃত্যুর নাটক সাজিয়ে আত্মগোপন করেছিলেন ওই যুবক।

রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে সিলেট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, গত শুক্রবার ভোররাতে বিয়াানীবাজার উপজেলার মাথিউরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমান উদ্দিন মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানান, তার ইউনিয়নের মাথিউরা পূর্বপার গ্রামের মো. আব্দুল হেকিমের বাড়ির কেয়ারটেকার তাইজুল ইসলাম নাহিদ ইসলাম (২৮) খুন হয়েছেন। তার ঘরভর্তি রক্ত। খবর পেয়ে বিয়ানীবাজার থানার এক দল পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়। সেখানে বিছানা, ঘরের মেঝে ও বারান্দা রক্তে সয়লাব থাকলেও লাশ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। প্রাথমিকভাবে এটিকে হত্যাকাণ্ড মনে হলেও রহস্য উদঘাটনে ও আসামিদের আটকে পুলিশ কাজ শুরু করে। অবশেষে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে খুন হওয়ার নাটক সাজানো নাহিদকে নরসিংদী থেকে আটক করে পুলিশ।

পুলিশ সুপার জানান, নাহিদকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় তিনি প্রায় ১৪ বছর ধরে বিয়ানী বাজারের এলাকায় প্রকৃত পরিচয় গোপন করে বসবাস করছেন। কিন্তু তার প্রকৃত পরিচয় কেউ জানত না। নাহিদের বাড়ি নীল ফামারীতে। তিনি বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ায় বিয়ানী বাজারে আত্মগোপন করেন।