বুধবার, ২২ মে, ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১, ১৩ জিলকদ, ১৪৪৫

শরীয়তপুরে স্বাস্থ্য কর্মকতাকে অবরোধ করে রাখলেন কর্মচারীরা

 

বেতন-বোনাস ও বৈশাখী ভাতার দাবিতে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে অবরোধ করে রাখেন কর্মচারীরা। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।

রোববার সকাল থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে স্বাস্থ্য সহকারী এবং তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা কাজ বন্ধ রেখে অবস্থান কর্মসূচি পালন শুরু করেন। এক পর্যায়ে তারা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার মো. কামরুল জমাদ্দারের কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেন।

বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শংকর চন্দ্র বৈদ্যকে জানানো হলে তিনি বেলা ৩টার দিকে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন। ইউএনও কর্মচারীদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে তালা খোলে দেওয়া হয়।

বিকালে ইউএনও সাংবাদিকদের বলেন, “শুনেছি তারা বেতন-বোনাস পাচ্ছিলেন না। পরে পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীমের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখন পরিবেশ শান্ত।”

আন্দোলনকারী স্বাস্থ্য সহকারী মো. নুর শাহের খান লেলিন সাংবাদিকদের বলেন, “বেতন-বোনাস ও বৈশাখী ভাতার জন্য কয়েক দফায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার সঙ্গে আলোচনা হয়। তিনি কোনো সুরাহা দেন না। তাই আমরা এই কর্মসূচি পালন করেছি। এর আগেও তিন মাস পরে আমাদের বেতন দিয়েছেন।”

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কামরুল জমাদ্দার বলেন, “বেতন-ভাতার ঘাটতি ছিল। আমরা এটা নিয়ে চিঠি চালাচালি করেছি। এদের ধারণা, ঈদের আগে পাবেন না। তাই তারা আমার কক্ষে তালা লাগিয়ে দিয়েছে। পরে পানিসম্পদ উপমন্ত্রীর সহযোগিতায় সমাধান হয়েছে।”

এ ঘট্নায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কামরুল জমাদ্দার স্বাস্থ্যকর্মী মোকলেস গোড়াগীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।