বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ, ১৪৩১, ১১ মহর্‌রম, ১৪৪৬

শরীয়তপুরে মাকে কুপিয়ে হত্যা করল ‘ছেলে’

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় মাকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগে ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে উপজেলার ঘড়িষার ইউনিয়নের বাহির কুশিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জাহিদ মাঝি (২৫) নামের এই যুবক আটক করে পুলিশে দিয়েছেন তার বাবা ও স্থানীয়রা।

নিহত নারগিছ বেগম (৪৫) ঘড়িষার ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ব্যবসায়ী মো. সেলিম মাঝির স্ত্রী।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, ঘড়িষার বাজারের হাজী জালাল উদ্দিন মার্কেটের মালিক মো. সেলিম মাঝি। সেলিম মাঝি ও নারগিছ বেগম দম্পতির তিন ছেলে-মেয়ে। জাহিদ সবার বড় ছেলে।

বুধবার বিকালে বিয়ের দাওয়াত খেয়ে জাহিদের সঙ্গে বাড়ি আসেন সেলিম ও নারগিছ। পরে স্ত্রী ও ছেলে জাহিদকে বাড়িতে রেখে সেলিম মাঝি দোকানে চলে যান।

সেলিম মাঝি বলেন, সন্ধ্যায় বাসায় গিয়ে তিনি ঘরের মধ্যে নারগিছকে রক্তাক্ত অবস্থায় মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন। পাশে দা নিয়ে জাহিদ দাঁড়িয়েছিলেন। পরে আশপাশের মানুষের সহযোগিতায় তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

সেলিম মাঝি বলেন, “জাহিদের মাথায় সমস্যা রয়েছে। সে তার মাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। আমি ওর ফাঁসি চাই।”

তার ভাষ্য – হত্যার বর্ণনা দিয়ে অভিযুক্ত জাহিদ মাঝি বলেছেন, “আমি মুনাফিক মাকে খুন করেছি। দীর্ঘদিন আমাকে দীনি পথে চলতে বাধা দিতেন আমার মুনাফিক মা।”

নড়িয়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান জানান, ছেলে মাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয়রা তাকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। কী কারণে হত্যা করেছে তা এখনও বলা যাচ্ছে না।