বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১, ২০ জিলকদ, ১৪৪৫

শরীয়তপুর নিরাপত্তাকর্মীর হাত-পা বেঁধে ডাকাতি, ৫০ লাখ টাকার মালামাল লুট

 

শরীয়তপুরে নিরাপত্তাকর্মীকে পিটিয়ে হাত-পা বেঁধে বিজলী কেবলসের বিক্রয়কেন্দ্রে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (৩০ জুন) ভোরে সদর উপজেলার রূপনগর ইতালি প্লাজা পালং মডেল থানা থেকে ১ শত গজ দুরে এ ঘটনা ঘটে। ডাকাতরা অন্তত ৫০ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে গেছে বলে বিজলী ক্যাবলস কর্তৃপক্ষের দাবি।

পুলিশ ও নিরাপত্তাকর্মী সূত্র জানায়, ভোর ৪টা ৪১ মিনিটের দিকে দুটি পিকআপ নিয়ে ইতালি প্লাজার প্রধান ফটকে অবস্থান নেয় ডাকাত দল। ভবনের ভেতরে থাকা বিজলী ক্যাবলসের তালা ভেঙে মালামাল তুলে নেওয়ার সময় টের পেয়ে পরিচয় জানতে চান পাশের মার্কেন্টাইল ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মী আব্দুর রউফ। এসময় পেছন থেকে তার মাথায় আঘাত করে চেতনানাশক দিয়ে গাড়ির ভেতর বেঁধে রাখে ডাকাতরা। পরে দুটি পিকআপে বিজলী ক্যাবলসের বিপুল সংখ্যক মালামাল নিয়ে চলে যায়। সকালে অচেতন অবস্থায় ওই মার্কেটের পাশ থেকে নিরাপত্তাকর্মীকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয়রা।

শরীয়তপুরে নিরাপত্তাকর্মীকে পিটিয়ে হাত-পা বেঁধে বিজলী কেবলসের বিক্রয়কেন্দ্রে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (৩০ জুন) ভোরে সদর উপজেলার রূপনগর ইতালি প্লাজায় এ ঘটনা ঘটে। ডাকাতরা অন্তত ৫০ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে গেছে বলে বিজলী ক্যাবলস কর্তৃপক্ষের দাবি।

পুলিশ ও নিরাপত্তাকর্মী সূত্র জানায়, ভোর ৪টা ৪১ মিনিটের দিকে দুটি পিকআপ নিয়ে ইতালি প্লাজার প্রধান ফটকে অবস্থান নেয় ডাকাত দল। ভবনের ভেতরে থাকা বিজলী ক্যাবলসের তালা ভেঙে মালামাল তুলে নেওয়ার সময় টের পেয়ে পরিচয় জানতে চান পাশের মার্কেন্টাইল ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মী আব্দুর রউফ। এসময় পেছন থেকে তার মাথায় আঘাত করে চেতনানাশক দিয়ে গাড়ির ভেতর বেঁধে রাখে ডাকাতরা। পরে দুটি পিকআপে বিজলী ক্যাবলসের বিপুল সংখ্যক মালামাল নিয়ে চলে যায়। সকালে অচেতন অবস্থায় ওই মার্কেটের পাশ থেকে নিরাপত্তাকর্মীকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয়রা।

এ বিষয়ে বিজলী ক্যাবলসের শাখা ব্যবস্থাপক মো. শাহীন হোসেন বলেন, ঈদের ছুটিতে আমরা বাড়ি যাই। সকালে খবর পেয়ে ছুটে আসি। একজন নাইটগার্ড ছিল তাকে আহত করে মালপত্র নিয়ে গেছে। আমাদের ৫০ লাখ টাকার বেশি মালামাল নিয়ে গেছে।

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক মনিরুজ্জামান খান বলেন, ডাকাতির ঘটনা প্রথমে আমাদের যে নিরাপত্তাকর্মী আছেন তিনি দেখেন। সেখানে গেলে তাকে বেধড়ক মারধর করে হাত-পা বেঁধে ফেলে ডাকাতরা। এখন তিনি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জানতে চাইলে পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আকতার হোসেন বলেন, ডাকাতির খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন। আমরা আশেপাশের ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছি।