বুধবার, ২২ মে, ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১, ১৩ জিলকদ, ১৪৪৫

‘পারিবারিক কলহের জের’ নড়িয়ায় ৩ সন্তানসহ নদীতে ঝাঁপ দিলেন মা, উদ্ধার ২

 

পারিবারিক কলহের জের ধরে জেলার নড়িয়া উপজেলার জপসা ইউনিয়নের বয়াতীকান্দি গ্রামের এক মা তার ৩ শিশু সন্তানকে নিয়ে কীর্তিনাশা নদীতে ঝাঁপ দিয়েছেন। প্রায় এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে স্থানীয়রা দুজনকে জীবিত উদ্ধার করলেও এখনো খোঁজ মেলেনি মা ও তার এক সন্তানের। উদ্ধার হওয়া দুই শিশুকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা সুস্থ আছে বলে সর্বশেষ খবরে জানা গেছে।

স্থানীয় ভোজেশ্বর বন্দরের ব্যবসায়ী নয়ন হাওলাদার জানান, ভোজেশ্বর বন্দরের পাটের দোকান কর্মচারী বাহার মাদবরের সঙ্গে তার স্ত্রী সালমা বেগমের দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গৃহবধূ সালমা বেগম (৩০) তার তিন শিশু সন্তান-ছেলে শাহ আবির (৭), মেয়ে অনিকা (৩) ও ছেলে সোলায়মানকে (১) নিয়ে টিকা দেওয়ার কথা বলে অটোরিকশাযোগে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর অটোরিকশা থেকে নেমে তিন সন্তানকে নিয়ে নদীতে ঝাঁপ দেন। স্থানীরা শিশু অনিকা ও সোলায়মানকে উদ্ধার করে দ্রুত শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় ডুবুরি দল নিখোঁজ দুজনকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বিকাল ৫টা পর্যন্ত তাদের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। এদিকে পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

অটোরিকশার চালক রাসেল মাদবর বলেন, বাড়ি থেকে টিকা দেওয়ার কথা বলে ভোজেশ্বর যাওয়ার উদ্দেশে তারা রওয়ানা দেয়। পথিমধ্যে সন্তানদেরকে নিয়ে নদীতে ঝাঁপ দেয়। নড়িয়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ফায়ার সার্ভিস নিখোঁজদের উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।