শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১০ ফাল্গুন, ১৪৩০, ১২ শাবান, ১৪৪৫

শরীয়তপুরে হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে খুন, বাদী আটক

শুক্রবার রাতে দুর্বৃত্তরা ওই ব্যক্তিকে এলোপাথাড়িভাবে কুপিয়ে হত্যা করে তার ঘরের সামনে ফেলে যায় বলে জানায় পুলিশ।

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলায় হত্যা মামলার এক আসামিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় ওই মামলার বাদীকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার গভীর রাতে উপজেলার পশ্চিম নাওডোবা ইউনিয়নের মেছের মুন্সি কান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানার ওসি শেখ শরিফুল আলম।

নিহত দাউদ খান (৪৫) ওই গ্রামের প্রয়াত ইসমাইল খানের ছেলে। তিনি একই গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মাদবর হত্যা মামলার আসামি ছিলেন।

আটক মোজাম্মেল মাদবর (৪০) একই গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মাদবরের ছেলে।

পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে দাউদ খানের সঙ্গে একই গ্রামের মোজাম্মেল মাদবরের আধিপত্য বিস্তার ও জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জেরে ২০১৪ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর মোজাম্মেলের বাবা বীরমুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডের শিকার হন।

ওই ঘটনায় মোজাম্মেল বাদী হয়ে ২৯ জনের বিরুদ্ধে জাজিরা থানায় হত্যা মামলা করেন। ওই মামলার দাউদ খান ৩ নম্বর আসামি ছিলেন।

ওসি শরিফুল আলম বলেন, শুক্রবার রাতে কে বা কারা দাউদ খানকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়িভাবে কুপিয়ে হত্যা করে তার ঘরের সামনে ফেলে যায়। তবে সে সময় দাউদের পরিবারের সদস্যদের কেউ বাড়িতে ছিলেন না।

সকালে এলাকাবাসী তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেয় বলে জানান তিনি।

খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

তিনি আরও জানান, শনিবার সকালে নিহতের স্বজনেরা বাদী মোজাম্মেলকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে মারধর করেন পুলিশে সোপর্দ করেন।

রাতের আঁধারে ঘটা এমন ঘটনাকে জঘন্যতম বলে উল্লেখ করেছেন পশ্চিম নাওডোবা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান (ইউপি) মো. আলমগীর হোসাইন।

পূর্ব শত্রুতার জেরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।

এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে জানিয়ে ওসি শরিফুল আলম বলেন, মামলা হলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।