বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ, ১৪৩১, ১১ মহর্‌রম, ১৪৪৬

নড়িয়ায় ছাত্রলীগ নেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় শেখ সুমাইয়া সুমু (২০)নামের এক ছাত্রলীগ নেত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে নড়িয়া থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকালে নড়িয়া পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের বৈশাখীপাড়া এলাকা তার নিজ বাড়ি থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। পরে ময়না তদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
শেখ সুমাইয়া সুমু নড়িয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নড়িয়া পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের বৈশাখীপাড়া এলাকার আবু বকর শেখের মেয়ে।
প্রতিবেশী মাহবুব আলম ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বুধবার ছিলো শেখ সুমাইয়া সুমুর জন্মদিন। নড়িয়া সরকারী কলেজে বন্ধুদের সাথে জন্মদিন উদযাপন করে। এর পর বাসায় ফিরে সেখানেও জন্মদিনের কেক কেটে উদযাপন করে। এর পর নিজ রুমের দরজা সিটকিনি লাগিয়ে শুয়ে পড়ে। এদিকে মধ্যরাত থেকে সুমাইয়ার মুঠোফোনে একাধিকবার কল আসা শুরু করে। রিংটোনের শব্দে ঘুম ভেঙে যায় সুমাইয়ার পরিবারের অন্য সদস্যদের। তারা দরজার বাইরে থেকে সুমাইয়াকে বার বার ডাকাডাকি করতে থাকে। তবে রুমের ভেতর থেকে কোন সারা শব্দ না পাওয়ায় একপর্যায়ে তারা দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় সুমাইয়ার মরদেহ ঝুলে থাকতে দেখেন তারা। বিষয়টি নড়িয়া থানায় জানালে পুলিশ এসে তার মরদেহ উদ্ধার করে।  সকাল ১০ টায় ময়না তদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।
নিহতের চাচা নড়িয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও পৌর কাউন্সিলর জাফর শেখ বলেন, ‘সুমাইয়া সম্পর্কে আমার ভাতিজি হয়। ওদের বাসা থেকে ফোন পেয়ে রাত ৩ টার দিকে আমি ছুটে যাই। যেয়ে রুমের দরজা ভিতর থেকে আটকানো দেখে সকলে মিলে ভেঙ্গে ফেলি। পরে ওকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাই। প্রেম ঘটিত কারণে ও এ আত্মহত্যা করে থাকতে পারে।’
নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাাফিজুর রহমান বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নড়িয়া সরকারী কলেজের ছাত্রলীগ নেত্রী সুমুর মরদেহ উদ্ধার করি। ময়না তদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতলে পাঠানো হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ থাকলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।’