বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১, ২০ জিলকদ, ১৪৪৫

জাজিরায় আওয়ামীলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে মুহুর্মুহু বোমা নিক্ষেপ, আহত ১০

শরীয়তপুরের জাজিরায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগের দুগ্রæপের সংঘর্ষে দু পক্ষের মধ্যে শতাধিক বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ সময় হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হলে কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। বিলাশপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও তার প্রতিপক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুরো এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে।
আজ বুধবার দুপুরে জাজিরা উপজেলার বিলাসপুর ইউনিয়নের সারেং কান্দি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিলাসপুর ইউনিয়নের বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান বর্তমান জাজিরা উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য কুদ্দুস বেপারীর সঙ্গে তার নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বী সেচ্চাসেবক লীগের সাবেক সহ-সভাপতি জলিল মাদবরের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার দুপক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটে। গত ২৭ মার্চ দুপক্ষের সংঘর্ষে বোমার আঘাতে সজীব মুন্সি নামের এক যুবক গুরুতর আহত হন। পরে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।


এ ঘটনার সূত্র ধরে বুধবার দুপুরে আবারও দুপক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়ান। এ সময় তারা জমিতে নেমে একে অপরকে লক্ষ্য করে শত শত হামবোমা ছুড়াসহ দেশীয় অস্ত্র সন্ত্র নিয়ে সংঘষে জড়ায়। বোমার মুহুর্মুহু শব্দে ভারী হয়ে ওঠে চারপাশ। এ ঘটনায় আজিজ মাদবর(২৬), মিজানুর রহমান (৪৫), হালান খা(৪৩), সফিক শেখ(৫৬) হাতেম আলী(৫৪), আলতাফ মিয়া ৯৫৬)সহ ১০ জন গুরুতর আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
জলিল মাদবর অভিযোগ করে বলেন, ‘ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে কুদ্দুস বেপারীর সমর্থকরা আমাদের লোকজনের ওপর হামলার প্রস্তুতি নেন। তারা আজ দুপুরে শাহাবুদ্দিন সারেং নামের আমার এক সমর্থকের হাত-পা ভেঙে দেন। পরে আমাদের লোকজন খবর পেয়ে তাদের প্রতিরোধ করেন।’


তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ইউপি চেয়ারম্যান কুদ্দুস বেপারী বলেন, ‘জলিল মাদবর আমাদের লোকজনকে মারার জন্য অন্য এলাকা থেকে লোক ভাড়া করে এনেছেন। পরে আজ দুপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের সৃষ্টি করেন। আমার লোকজন গুরুতর আহত হয়েছেন।’
জানতে চাইলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নড়িয়া সার্কেল) আহসান হাবীব বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে দুইজনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে।