বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ, ১৪৩১, ১১ মহর্‌রম, ১৪৪৬

সেপটিক ট্যাংকে পড়া সহকর্মীকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল যুবকেরও

শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলায় সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কারের সময় অসাবধানতাবশত নিচে পড়ে যাওয়া সহকর্মীকে তুলতে নেমে দুই পরিচ্ছন্নতাকর্মীর মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার দারুল আমান ইউনিয়নের উত্তর ডামুড্যা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে জানান ডামড্যা থানার ওসি এমারত হোসেন।

মৃতরা হলেন- বগুড়ার সোনাতলা থানার পশ্চিম টেকানী গ্রামের দুলু শেখের ছেলে আব্দুল মালেক শেখ (৪৫) এবং একই থানার পূর্ব টেকানী গ্রামের আফছার বেপারীর ছেলে লিটন বেপারী (৩৫)।

ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা জানান, ডামুড্যা গ্রামের কবির সরদারের বাড়ির সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কার করার জন্য মালেক শেখ ও লিটন বেপারীর সঙ্গে ১০ হাজার টাকায় চুক্তি হয়। চুক্তি অনুযায়ী তারা বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে ট্যাংকের মধ্যে পাইপ বসিয়ে ময়লা অপসারণ করছিলেন।

এ সময় লিটন অসাবধানতাবশত ট্যাংকে পড়ে গেলে মালেক তাকে উদ্ধারে নিচে নামেন। কিন্তু তারা আর উপরে উঠতে না পারলে বাড়ির লোকজন ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে সেপটিক ট্যাংক থেকে মালেক ও লিটনকে উদ্ধার করে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ডামুড্যার টিম লিডার প্রদীপ কীর্তনিয়া বলেন, “সেপটিক ট্যাংকের মধ্যে অনেক বেশি বিষাক্ত গ্যাস ছিল। গ্যাস অপসারণের পর মালেক ও লিটনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়।”

ওসি এমারত হোসেন বলেন, ময়নাতদন্তের পর ওই দুই পরিচ্ছন্নতা কর্মীর লাশ তাদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।